হাইভোল্টেজ ম্যাচের মাঝমাঠেই ব্রাজিলকে রুখে দেবে আর্জেন্টিনা!

ফুটবলবিশ্বের দুই পরাশক্তির নাম ব্রাজিল এবং আর্জেন্টিনা। বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচে বাংলাদেশ সময় শুক্রবার ভোর পৌনে ৬টায় বেলো হরাইজন্তের মাঠে নামছে  দুই দল।

এই দুই দলের খেলা মানেই দর্শকদের মাঝে চাপা উওেজনা। গত বিশ্বকাপ থেকেই বেসামাল অবস্থায় থাকা ব্রাজিল এখন অনেকটাই ঘোছানো দল। ব্রাজিলের শক্তির জায়গা মাঝ মাঠ। আর সেখানেই দূর্বল আর্জেন্টিনা। বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের ইতিহাসে অষ্টমবারের মতো মুখোমুখি হচ্ছে দুই দল।

আর্জেন্টিনার দুর্বলতাকেই শক্তিতে রূপ দিতে চাইলেন এদগার্দো বাউজা। ব্রাজিলের বিপক্ষে আর্জেন্টিনা নামবে মাঝমাঠের শক্তিতে বলীয়ান হয়ে। মাঝমাঠের শক্তি বাড়াতে গিয়েই সার্জিও আগুয়েরোর জায়গা হচ্ছে বেঞ্চে। আক্রমণভাগে গঞ্জালো হিগুয়েইনের সঙ্গে থাকছেন লিওনেল মেসি।

মেসিকে ফিরে পেলেও বাউজা মূল শক্তির জায়গা হিসেবে তৈরি করতে চাইছেন মিডফিল্ড। আর্জেন্টিনা ৪-৪-২ ফরম্যাটে ফিরে যাচ্ছে। হিগুয়েইন-মেসির পেছনেই থাকবেন এনজো পেরেজ, হাভিয়ের মাসচেরানো, লুকাস বিলিয়া ও অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়া। নেইমারের নেতৃত্বে ব্রাজিলের আক্রমণ তৈরি হওয়ার আগেই তা রুখে দেওয়াই আর্জেন্টিনার লক্ষ্য। আর্জেন্টিনা প্রতি–আক্রমণের দিকে বেশি নজর দিতে চায়।

বাউজা বলেছেন, ‘ডি মারিয়া আর এনজো পেরেজের ওপর বেশি ভরসা করছি। কারণ, আমি মনে করি, শারীরিকভাবে ওরা আমাদের ছন্দটা ধরে রাখার ব্যাপারে সাহায্য করতে সক্ষম। এনজোকে আমি ওর দুই বছর আগের জায়গায় ফিরিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। কারণ, ও এখানেই প্রথম খেলেছে। প্রতিপক্ষকে নিয়ে অনেক বেশি ভাবার চেয়ে অবশ্য আমি বেশি করে ভাবছি নিজেদের ভুল নিয়েই, যে ভুলগুলো আমাদের আগের ম্যাচগুলোতে বেশ ভুগিয়েছে।’

বাউজা কোচ হয়ে আসার পর মাত্র এক ম্যাচ জিতেছে আর্জেন্টিনা। সেটিও মেসির প্রায় একক জাদুতে। পরের তিন ম্যাচে চোটের কারণে মেসি ছিলেন না। এর দুই ম্যাচে আর্জেন্টিনা ড্র করেছে, সর্বশেষ নিজেদের মাঠে হেরে গেছে প্যারাগুয়ের কাছে।

SHARE