‘আমি তো চাই ওদের ১০ বছর নিষিদ্ধ করতে’

সম্প্রতি সময়ে আবারো বিতর্কের সঙ্গে জড়িয়েছেন জাতীয় দলের দুই তারকা ক্রিকেটার সাব্বির রহমান ও নাসির হোসেন। এই নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিসিবির পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন। তার কথা ঠিক হলে বড় ধরণের শাস্তি পেতে যাচ্ছেন এই দুই ক্রিকেটার।

বাংলাদেশ দলে আগেও বেশ কয়েকবার বিতর্কে জড়িয়েছেন সাব্বির রহমান ও নাসির হোসেন। আগের কর্মকান্ডের জন্য সাব্বির শাস্তি ভোগ করেছেন বেশ কয়েকবার। সম্প্রতি আবারো বিতর্কে জড়িয়েছেন এই দুই ক্রিকেটার। উইন্ডিজ সিরিজ চলাকালীন বাজে পারফরম্যান্সের কারণে এক ক্রিকেট সমর্থক সাব্বিরের সমলোচনা করেছিলেন।

সেই সমলোচনার জের ধরে ঐ সমর্থকের দাবি পরবর্তীতে তাকে বাজে ভাষায় গালিগালাজ করেন সাব্বির। যদিও সেটি পরে অস্বীকার করেন সাব্বির। ইতোমধ্যে বিসিবির কাছে অভিযোগ এসে পৌঁছেছে। তার আগে সাব্বিরের সতীর্থ নাসির হোসেনের নামে অভিযোগ উঠে নারী জড়িত। এই দুই ক্রিকেটারের শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে বেশ ক্ষিপ্ত বিসিবির পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন। তার চাওয়া দশ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হোক সাব্বির ও নাসিরকে।

‘আশরাফুল যদি একটা কারণে কয়েক বছর নিষিদ্ধ থাকতে পারে তাহলে এরা নিষেধাজ্ঞা খাবে না কেন? আমার তো মন চায় ওদের (নাসির-সাব্বির) ১০ বছর নিষিদ্ধ করতে। সত্যি বলতে, আমি চাই যে ওরা আর ক্রিকেটই না খেলতে পারুক। আমার মতে, ভুল অন্য একটা জিনিস কিন্তু সেই ভুল বারবার করাকে সমর্থন করার মত নয়। সেটা কিন্তু আপনার ব্যক্তিগত জীবনের সঙ্গে জুড়ে যায়।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘আমি মনে করি কমপক্ষে ৪-৫ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা উচিৎ। তিন বছর তো নিম্নে, এর উপরে শাস্তি পাওয়া উচিৎ। কারণ এই বছরে আপনি খেলতে পারবেন না, আপনার পকেটে টাকা থাকবেনা যখন আপনি এই হিরোগিরি দেখাতে পারবেন না তখন কিন্তু আপনি একদম মানুষ হয়ে যাবেন।’

তরুণ ক্রিকেটারদের এত সতর্ক করার পরেও কেন এসব কাজে জড়াচ্ছেন সেটির কারণ খুজে পেয়েছেন সুজন। মূলত খেলার চেয়ে অন্য জায়গায় মনোনিবেশ করাতে এসব ঘটছে বলেন সুজন।

‘যেটা হচ্ছে তরুণ ক্রিকেটাররা শারীরিকভাবে ফিট কিন্তু মানসিক দিয়ে ফিট না। তাদের মাথায় অনেক কিছু আসে আসলে। তাদের মাথায় ফ্ল্যাট কিনতে হবে, বাড়ি কিনতে হবে। আরে এগুলো তো সময়ই করে দিবে। আপনি কেন এই জমির পেছনে দৌড়াবেন? আপনি টাকা গুলো কোথায় ব্যয় করবেন? আপনি ভালো খেলেন এগুলো এমনিতেই আসবে।’

সুজনের কথা অনুসারে বড় শাস্তির মুখে পড়তে যাচ্ছেন সাব্বির ও নাসির। আগামী বোর্ড সভায় তাদের শাস্তির ব্যাপারে আলোচনা করা হবে। নিষেধাজ্ঞার কবলেও পড়তে পারেন এই দুই ক্রিকেটার।

সূত্র: বিডিক্রিকটাইম